testআমি শতভাগ নিশ্চিত ,এটা আল কায়েদার বার্তা-জিহাদোলোজি | bangladeshi-special-news | eurobdnews.com
আমি শতভাগ নিশ্চিত ,এটা আল কায়েদার বার্তা-জিহাদোলোজি
ডেস্ক রিপোর্ট


ওয়াশিংটন ভিত্তিক ‘জিহাদোলোজি ডট নেট’ ওয়েবসাইট এর কর্ণধার অ্যারন জেলিন দাবি করেছেন, তিনি প্রাইমারী সোর্স (আল কায়েদা) থেকেই  বাংলাদেশে জিহাদের আহ্বান জানিয়ে আল কায়েদা প্রধান আয়মান আল জাহিরির অডিও টেপটি পেয়েছেন এবং নিজের ওয়েবসাইটে আপলোড করেছেন। তিনি বলেন,’আমি শতভাগ নিশ্চিত ,এটা আল কায়েদার বার্তা।‘

’দ্যা ওয়াশিংটন ইন্সটিটিউট ফর নিয়ার ইষ্ট পলিসি’ নামক একটি গবেষনা সংস্থার  রিসার্চ ফেলো  অ্যারন জেলিনের পরিচালিত ‘জিহাদোলোজি ডট নেট’ ওয়েবসাইটে  আল- জাহিরির অডিও বার্তাটি  গত ১৪ জানুয়ারি প্রকাশিত হয়। পরে সেই লিংক ইউটিউবসহ মৌলবাদী বিভিন্ন  ব্লগ এবং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে  রাজনৈতিক অঙ্গনেও ব্যাপক উত্তাপ সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে আইন শৃংখলা বাহিনীও  তৎপর হয়।
বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, জিহাদোলোজি ডট নেট’ নামক একটি ওয়েবসাইটে অডিও বার্তাটি প্রকাশিত হয়। সরকার বাংলাদেশে সাইটটি বন্ধ করে দেয়। তারই প্রেক্ষিতে ওয়েব সাইটটির কর্ণধার অ্যারন জিলনের সঙ্গে ইমেইলে যোগাযোগ করা হয়। সোমবার ও মঙ্গলবার দফায় দফায় ইমেইল চালাচালিতে অ্যারন জিলন আল কায়েদার অডিও বার্তাটি নিয়ে বিভিন্ন তথ্য দেন।
অ্যারন জানান, আল কায়েদার নিজস্ব একটি অনলাইন ফোরাম আছে। তাদের যে কোনো বক্তব্য প্রথমেই  আল ফিদা নামের সেই ফোরামে প্রকাশিত হয়। আলোচিত অডিও বার্তাটিও প্রথম আল ফিদা ফোরামে প্রকাশিত হয়। আরবী ভাষায় পরিচালিত আলফিদা ফোরামের সূত্রেই তিনি অডিও বার্তাটি পান এবং নিজের ওয়েবসাইটে আপলোড করেন।
অ্যারন  জানান,  তিনি যেহেতু বাংলাদেশ নিয়ে গবেষনা করেন না, সেকারনে তিনি অডিওটি দেখেননি। তিনি এর কনটেন্ট সম্পর্কেও অবগত নন। অ্যারন বলেন,’ সব জিহাদি কনটেন্টই আমি আমার সাইটে আপলোড করি। এটা করি যাতে অন্যান্য গবেষকদের তথ্য পেতে সহায়তা হয়।’
অ্যারন জানান, আল- কায়েদা নিয়ে যারা  গবেষনা করেন, তাদের অনেকেই তার ওয়েবসাইটটি  ব্যবহার করেন।  এটি নিতান্তই একাডেমিক একটি ব্লগ। ওয়েবসাইটের ’অ্যাবাউট মি’ সেকশনের দিকে তাকালেই বিষয়টা পরিষ্কার হয়ে যায়। তিনি বলেন, আমার ওয়েবসাইট কখনোই সেনসেশনাল মিডিয়া কাভারেজের বিষয়বস্থু হয়ে ওঠেনি।  বাংলাদেশের মিডিয়া প্রথমবারের মতো সেনসেশন তৈরি করে দিলো । অথচ কোনো একটি মিডিয়াও আমার সাথে যোগাযোগ করেনি বা আমার বক্তব্য জানার চেষ্টা করেনি। তারা তাদের মতো করে লিখে যাচ্ছে। বাংলাদেশের মিডিয়া এইক্ষেত্রে খুবই অপেশাদার আচরন করেছে।”
অ্যারনকে প্রশ্ন করা হয়, যে অডিও   বার্তাটিকে আল- কায়েদা প্রধানের বার্তা হিসেবে বলা হচ্ছে। এটি কি সত্যিই আল- কায়েদার বার্তা? ’দ্যা ওয়াশিংটন ইন্সটিটিউট ফর নিয়ার ইষ্ট পলিসি’র রিসার্চ ফেলো অ্যারন বলেন, শতকরা ১০০ ভাগ নিশ্চিয়তা দিতে পারি এটা আল-কায়েদার বার্তা। আমি আগেও বলেছি,প্রাইমারী সোর্স থেকে আমি এই অডিও বার্তাটি পেয়েছি। এটি যে আল- কায়েদারই বার্তা সে ব্যাপারে আমি শতভাগ নিশ্চিত।
 প্রায় এক মাস আগে আপলোড হওয়া বাংলাদেশ নিয়ে আল কায়েদা প্রধানের বার্তাটি এখন আর ওয়েবসাইটের হোমপেজে নেই। ’বাংলাদেশ’- লিখে  সার্চ দিলে   বাংলাদেশ সম্পর্কিত তিনটি লিংক পাওয়া যায়।  ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১০ সালে প্রচারিত প্রথম বার্তাটি ছিলো  আফগানিস্তানের তালেবানদের পক্ষ থেকে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানে চলমান যুদ্ধে বাংলাদেশি সৈন্য চেয়ে সরকারের কাছে অনুরোধ করেছিলো।  তারই প্রতিক্রিয়া জানিয়ে সেই বার্তাটি প্রচার করা হয়েছিলো আফগান তালেবানদের পক্ষ থেকে। তাতে আফগানিস্তানে বাংলাদেশি সৈন্য পাঠানোর যে কোনো উদ্যোগ প্রতিহত করার আহ্বান জানানো হয়েছিলো। সেই বার্তাটি ’জেহাদোলোজি’ কোনো ধরনের সম্পদনাবিহীন এই ওয়েবসাইটে আপলোড করে। এর দীর্ঘদিনর পর গত  এপ্রিল ২,২০১৩  তারিখে একটি  অডিও বার্তা আপলোড করা হয় এই ওয়েবসাইটটিতে।



সময়কাল: 2014-02-19 21:53:30
সর্বশেষ সংবাদ

  • বৃহস্পতি ও রোববার হরতাল ডেকেছে জামায়াত || সাঈদীর চূড়ান্ত রায় কাল || চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙ্গর থেকে ২ লাখ ২০ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করেছে নৌবাহিনী || পাঁচ সচিবের মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিলের সিদ্ধান্ত
উপরে